‘নতুন কর্মসূচি’ ঘোষণা দিয়ে ঢাবি ছাড়লো আন্দোলনকারীরা

SHARE

kota-protest8_134495ওয়ার্ল্ড ক্রাইম নিউজ বিডি ডট কম,নিজস্ব প্রতিনিধি,১০ এপ্রিল :  সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত স্থগিতের সিদ্ধান্ত মানছেন না আন্দোলনকারীদের একাংশ। তারা স্থগিতের সিদ্ধান্ত না মেনে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। সোমবার রাতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাদের বাইরে সাধারণ আন্দোলনকারীদের মধ্য থেকে বিপাশা চৌধুরী নামের এক শিক্ষার্থী ‘নতুন কর্মসূচি’ ঘোষণা দিয়ে আজকের মতো আন্দোলন স্থগিত করেন।

দাবি না মানা পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীদের ক্লাস এবং পরীক্ষা বর্জনের আহ্বান জানিয়ে ওই শিক্ষার্থী বলেন, যদি ১৫ এপ্রিলের মধ্যে কোটা সংস্কারের ব্যাপারে কোনো সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত না জানানো হয় তাহলে আগামী ১৬ তারিখ চলো চলো ‘ঢাকা চলো’ কর্মসূচি পালন করা হবে। দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা রাজধানীতে চলে আসবে।

‘নতুন কর্মসূচি’ ঘোষণা দিয়ে ঢাবি ছাড়লো আন্দোলনকারীরা

রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে তিনি বলেন, ‘আমাদের আন্দোলনের যে কমিটি ছিল। তারা আমাদের সঙ্গে পরামর্শ না করেই আন্দোলন স্থগিত করেছেন। আমরা এই সিদ্ধান্ত মানি না। আন্দোলন চলবে। আমি অনুরোধ করবো পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীদের এই কর্মসূচিতে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করতে।

বিপাশা বলেন, আমরা নিজেদের এখানে নিরাপদ বোধ করছি না। কর্মসূচি আজকের মতো শেষ। আজকে কর্মসূচি স্থগিত। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ফের রাজু ভাস্কর্য থেকে শুরু হবে লাগাতার ধর্মঘট ও ক্লাস বর্জন কর্মসূচি।

এরই মধ্যে রাত সাড়ে ৯টার দিকে আর কোনও আন্দোলনকারীকে মাঠে দেখা যায়নি। তবে শাহবাগ ও দোয়েল চত্বরে পুলিশের উপস্থিতি দেখা গেছে।

সোমবার সচিবালয়ে সরকারের প্রতিনিধি সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকের সময়ে টিএসসি এলাকায় অবস্থানরত আন্দোলনকারীরা খানিকটা নীরব ছিলেন। তবে ওই বৈঠক থেকে স্থগিতের সিদ্ধান্ত ঘোষণা হওয়ায় সরব হয়ে ওঠেন তারা। কোটা সংস্কারের দাবিতে ফের স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় আন্দোলন স্থগিত হয়নি বলেও প্রচার করা হয় মাইকে। সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর প্রতিনিধি দল ফিরে এসে সবাইকে আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত জানালে সাধারণ আন্দোলনকারীরা ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠেন। তারা আন্দোলন স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করেন। এ সময় ‘ভুয়া’, ‘ভুয়া’ স্লোগান দেওয়া হয়। তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

‘নতুন কর্মসূচি’ ঘোষণা দিয়ে ঢাবি ছাড়লো আন্দোলনকারীরা

সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলেন, আগামী মাসে অধিকাংশ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা ও রোজা। এই পরিকল্পনা মাথায় নিয়ে মুলো ঝুলিয়েছে সরকার। আমরা এ সিদ্ধান্ত মানি না। অন্তত কোটা সংস্কারের জন্য প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে।

এদিকে আন্দোলনকারীরা শাহবাগ ও বাংলা একাডেমির দিকে বোল্ডার দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে রেখেছেন। তাদের আশঙ্কা, পুলিশ গাড়ি নিয়ে ঢুকে আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা করতে পারে। চারুকলার পাশে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধির সামনে রাস্তাতেও তারা ব্যারিকেড দিয়ে রাখেন। রাস্তার কোনও কোনও স্থানে ব্যারিকেড দিয়ে ছোট ছোট আগুনও জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে।

‘নতুন কর্মসূচি’ ঘোষণা দিয়ে ঢাবি ছাড়লো আন্দোলনকারীরা

উল্লেখ্য, বিদ্যমান কোটাব্যবস্থার সংস্কার চেয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এ দফায় গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে আন্দোলন করে আসছে। গত রোববার তাদের পদযাত্রা ও অবস্থা কর্মসূচি চলাকালে ঢাকায় পুলিশ বাধা দিলে সহিংস পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশ লাঠিপেটা, কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশসহ শতাধিক আন্দোলনকারী আহত হয়েছেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY