ত্রিপুরা বিধানসভার শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ, ৩রা মার্চ ফলাফল

SHARE

tripura-1সাহিদ সিরাজী, ত্রিপুরা থেকে : ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিধান সভার ৫৯টি আসনের ভোটগ্রহণ গতকাল রোববার শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। রাজ্যের ২৫লাখ ৩৬ হাজার ৫৮৯জন ভোটার তাদের তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। এবারই প্রথম রাজ্যে ১১জন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পায়। আগামী ৩রা মার্চ ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

ত্রিপুরা রাজ্যের বিধান সভার ৬০টি আসনের মধ্যে সিপিএমের প্রার্থী রামেন্দ্র নারায়ণ দেব্বারমার মৃত্যুর কারণে চারিলাম আসনে ভোট গ্রহণ স্থগিত থাকায় ৫৯ আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সিপিআইএম এর নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট অস্টম সরকার গঠনের লক্ষ্যে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। বিজেপি পরির্বতনের শ্লোগান নিয়ে নির্বাচনে লড়ছে, এছাড়াও রয়েছে কংগ্রেস, আঞ্চলিক দল আইপিএফটি তৃর্ণমূল কংগ্রেস, আইএনপিটি ও এনসিটি।

রাজ্যের ২৫লাখ ৩৬হাজার ৫৮৯ জন ভোটার ৩২১৪ টি বুথে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। কিছু বুথে ইভিএম কাজ না করায় ভোটগ্রহণে বিলম্ভ হয়। এবার ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৩ হাজার ১৭৪টি, যার মধ্যে ৪৭টির ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছেন শুধু নারী কর্মকর্তারা। নতুন ভোটার ৪৭ হাজার ৮০৩ জন।

ভোটাধিকার শান্তিপূর্ণ সম্পন্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর ভূমিকা পালন করে। শনিবার থেকেই রাজ্যের সাথে বাংলাদেশের সীমান্ত পথগুলো সীল করে দেয়া হয়। হোটেল ও যানবাহনে সর্বত্র ব্যাপক তল্লাসী করা হয়।

ত্রিপুরার নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একাধিকবার এসে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন। কংগ্রেস সর্বভারতী সভাপতি রাহুল গান্ধী, পশ্চিমবঙ্গ বামফ্রন্ট নেতা বিমান বসু সহ অনেকেই ত্রিপুরার নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন।

মুখ্য নির্বাচনী আধিকারী তরুনী কান্ত নির্বাচন শেষে সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করায় রাজ্যের ভোটার, দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচনী অফিসার, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও রাজনৈতিক দল এবং সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানায়।

বিকেল ৪টার মধ্যে রাজ্যের অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শেষ হলেও বেশ কিছু ভোটে ইভিএম কাজ না করায় ভোটগ্রহণ শেষ হতেই রাত ৮টা লেগে যাবে।
বামফ্রন্ট, কংগ্রেস, বিজেপি জোট রবিবার বিকেলে স্ব স্ব দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে রাজ্যবাসীকে ধন্যবাদ জানায়। নির্বাচন নিয়ে কোন দল থেকেই তেমন কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

গতবার নির্বাচনে ৯১ দশমিক ৮২ শতাংশ ভোট গৃহীত হয়েছিল। এবার তেমনই হবে আশা করা হচ্ছে। আগামী ৩রা মার্চ নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা করা হবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY